ওয়েব ডিজাইন

আউটসোর্সিং কি, কেন এবং কিভাবে আউটসোর্সিং করবেন?

আউটসোর্সিং কি, কেন এবং কিভাবে আউটসোর্সিং করবেন?

আউটসোর্সিং কি

আউটসোর্সিং শব্দটি অনেকের সাথে পরিচিত। আবার অনেকের কাছে কথাটি নতুন। আউটসোর্সিং হচ্ছে তথা ফ্রিল্যান্সিং, এর অর্থ হল একটি স্বাধীন পেশা। অর্থাৎ স্বাধীনভাবে কোন কাজ করে আয়ের একটি অন্যতম পেশা। একটু সহজ ভাবে বলতে গেলে, ইন্টারনেটের মাধ্যমে অন্য কোন বা ভিন্ন প্রতিষ্ঠান ভিন্ন ধরনের কাজ প্রদান করে তা ফ্রিল্যান্সারদের মাধ্যমে তা করিয়ে নেয়া। নিজের প্রতিষ্ঠান ব্যতীত অন্য কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানকে দিয়ে  কাজ করানোকেই মূলত আউটসোর্সিং বলে। যারা আউটসোর্সিংয়ের কাজ করেন,  তারাই মূলত ফ্রিল্যান্সার।

কেন আউটসোর্সিং করবেন

বিশ্বের প্রায় প্রত্যেকটি দেশেই তথা আমাদের বাংলাদেশে আউটসোর্সিং জগতে কাজ করে এমন লাখ লাখ ফ্রিল্যান্সার রয়েছেন। কিন্তু তাদের সবাই শতভাগ সফল নয়। তারা কিছু অসৎ লোকের পাল্লায় পড়ে আউটসোর্সিং এর উপর নেতিবাচক ধারণা তৈরী হয়েছে। সবসময় মনে রাখবেন আউটসোর্সিং একটি স্বাধীন বা মুক্ত পেশা,  যেখানে আপনার ব্যক্তিগত জবাবদিহিতার চেয়ে কাজের জবাবদিহিতা অনেক বেশি। আপনি এই জগতে আসবেন অবশ্যই আয় করার জন্য। একটি কথা সবসময় মনে রাখবেন, আপনি যার কাছ থেকে টাকা উপার্জন করবেন তাকে কোন না কোন সেবা প্রদান করেই এই অর্থ উপার্জন করতে হবে। তাই যদি হয়, আপনার কাজে যদি ত্রুটি থাকে, আপনার কাজে যদি কোন প্রকার জবাবদিহিতা না থাকে,  এবং আপনার কাজে যদি অনেক কোন স্বচ্ছতা না থাকে তবে আপনার পক্ষে এই সেক্টরে সফল হওয়া অসম্ভব। আউটসোর্সিং এ সবসময় আপনি নিজেকে দিয়ে মূল্যায়ন করবেন। আপনার কাজের দক্ষতা আপনাকে উপরের দিকে যাওয়ার রাস্তা তৈরি করে দিবে, তাই আপনাকে যে কাজ দেওয়ার হবে সেই কাজ যদি আপনি সঠিক ভাবে সঠিক সময়ের মধ্য দিয়ে কাজটি গ্রাহককে প্রদান করতে না পারেন তাহলে আপনাকে সেখান থেকে ছিটকে যেতে হবে সেই মুহূর্তেই, আর যদি তা পজিটিভ হয়, তাহলে সেও খুশি থাকবে এবং আপনারও ভবিষতে কাজ পাওয়ার সম্ভাবনাও অনেক বেড়ে যাবে।

কিভাবে আউটসোর্সিং করবেন

আমরা আউটসোর্সিং করা যতটা সহজ ভাবি কাজটা আসলে ততটা সহজ নয়। আসলে এই পৃথিবীতে কোন কাজই সহজ নয়। আমরা ভাবি একরকম কিন্তু বাস্তবে অন্যরকম। অনেকেই চিন্তা করেন আউটসোর্সিং করে ঘরে বসেই খুব সহজে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করা যায়। কিন্তু বাস্তবে অনলাইনে আয় করার চিত্রটা একটু ভিন্ন। আপনার যদি অনলাইনে কাজের দক্ষতা থাকে তাহলে শুধুমাত্র আউটসোর্সং নয় অন্য যেকোন সেক্টরে আপনি খুব সহজেই সফল হতে পারেন। আউটসোর্সিং এর ভিন্নতা হল, এখানে (আউটসোর্সিং) কাজ করা এবং অনলাইনে কাজ পাবার স্বাধীনতা আছে যা আপনি অন্য কোন সেক্টরে তা পাবেন না। পার্থক্য হল আপনার পরিশ্রমের সঠিক মূল্যায়ন এখানে করা হবে।  অন্যান্য পেশায় যার জন্য প্রতিনিয়ত কর্তাদের সঙ্গে কর্মকর্তাদের মন কাষাকষি হরহামেশই লেগেই থাকে, যা আউটসোর্সিং করলে আপনি পাবেন না। এক কথায় আউটসোর্সিং হল উপযুক্ত কাজ করে এবং তা থেকে সহজ পদ্ধতিতে আয় করার একটি অন্যতম উৎস। যেখানে আপনার সফল হতে হলে, অবশ্যই আপনাকে প্রথমেই দক্ষতা অর্জন করতে হবে, এবং কাজ করার জন্য আপনাকে সঠিক মার্কেটপ্লেসে বেচে নিতে হবে।

কিভাবে মার্কেটপ্লেসে কাজ করবেন

ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে কাজ করতে হলে আপনাকে নির্দিষ্ঠ একটি বিষয়ে দক্ষতা অর্জন করতে হবে। যেমন-ওয়েব ডিজাইন, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট, সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন, গ্রাফিক্স ডিজাইন এবং ডিজিটাল মার্কেটিং ইত্যাদি এ সকল বিষয় সমূহের মধ্যে যে কোন একটি জানতে হবে। শুধু এই বিষয় গুলোই নয় আরও অনেক ক্ষেত্র আছে যা শিখে আপনি আউটসোর্সিং করতে পারবেন। আপনি কোন প্রতিষ্ঠান থেকে যে কোন বিষয়ের উপর প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে আপনি মার্কেটপ্লেসে কাজ করতে পারেন।

এ সম্পর্কিত যে কোন প্রশ্ন, কৌতুহল, জিজ্ঞাসা, কিংবা আরও বিস্তারিত জানতে এই লিংকে ক্লিক করুন।

Responsive website design and development course

Responsive website design and development course

ফ্রীল্যান্সিং জগতে সৃজনশীল কাজের নাম হল ওয়েবসাইট ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট। এই পৃথিবীতে লক্ষ লক্ষ ওয়েবসাইট রয়েছে। আপনি যদি সৃজনশীল হন তবে এরকম ওয়েবসাইট আপনিও তৈরি করতে পারবেন? তাছাড়া গ্রাহকের ওয়েবসাইট তৈরি করে ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস থেকেও প্রচুর টাকা আয় করার সুযোগতো রয়েছে।

কারণ ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে জনপ্রিয় কাজগুলোর মধ্যেও ওয়েব ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট অন্যতম। ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে প্রতিদিন ওয়েব ডিজাইনের অনেক কাজ যুক্ত হচ্ছে, সেই সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে ওয়েব ডেভেলপারদের চাহিদা। আর কাজের চাহিদা বাড়ার সাথে সাথেই বাড়ছে দক্ষ ডেভেলপারদের কাজের ক্ষেত্র। যারা এ কাজের সাথে যুক্ত আছেন তাদের আয়ের পরিমানও তুলনামূলক ভাবে অনেক ভালো, সেই সাথে প্রতিদিনই যুক্ত হচ্ছেন নতুন অনেক ওয়েব ডেভেলপার। চাইলে আপনিও এই সম্ভাবনাময় জগতে পা রাখতে পারেন।

যদি ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর সব ব্যাপার গুলো সঠিকভাবে শিখতে পারেন তবে এটি নিশ্চিত করে বলা যায় আপনার কাজের অভাব হবেনা। শর্ত হচ্ছে, আপনার সাইট তৈরির দক্ষতা হতে হবে আন্তর্জাতিক মানের। তবে এজন্য আপনাকে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট ভাল ভাবে রপ্ত করতে হবে।

যারা ওয়েব ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্টে ক্যারিয়ার গড়তে চান তাঁদের জন্যই আমরা আয়োজন করছি তিন মাসব্যাপী প্রফেশনাল ওয়েব ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট প্রশিক্ষণ, এবং সাথে থাকছে রেসপনসিভ ওয়েবসাইট ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট। বর্তমানে বিশ্বব্যাপী যেহেতু নন-ডেস্কটপ ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা বাড়ছে সেই সাথে রেসপনসিভ ওয়েব ডিজাইনারদের চাহিদাও বেড়েই চলেছে। তাই এ এম ওয়েব ক্রিয়েশন এর এবারের কোর্স রেসপনসিভ ওয়েবসাইট ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট। কোর্সটি সম্পন্ন করার পর আপনিও হয়ে যেতে পারেন আন্তর্জাতিক মানের ওয়েবসাইট ডিজাইন ডেভেলপার।

এই কোর্সে যা যা শেখানো হবে?

 Introduction to Web design
 Intro to responsive web design
 Introduction to Photoshop
 UI kit making
 Web UI making
 Overall Review
 HTML – Elements
 HTML – Review
 CSS
 PSD to HTML/CSS Conversion: Project 1
 PSD to HTML/CSS Conversion: Project 2
 CSS Grid System, Responsiveness & Twitter Bootstrap
 Introduction to JavaScript
 JavaScript & DOM
 JavaScript Library: jQuery
 Working with jQuery
 JQuery in Practice
 Review & QA
 MYSQL
 WORDPRESS
 PHP

মোট কথা, তিন মাসব্যাপী এ প্রশিক্ষণটিতে রেসপনসিভ ওয়েব ডিজাইন শেখানো হবে। তার সাথে ফটোশপ, এসইচটিএমএল, পিএসডি, ওয়ার্ডপ্রেস, সিএডিজাইন, জাভাস্ক্রিপ্ট বেসিক, রেসপনসিভ লেআউট, এবং পিএসডি টু এইচটিএমএল কনভার্সন সহ পূর্ণ ওয়েব ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট শেখানো হবে। ওয়েব ডিজাইনের এ প্রশিক্ষণটি সমাপ্ত করার পর যেকোন ওয়েবসাইট তৈরির কাজ তো করতে পারবেনই, পাশাপাশি ওয়েবসাইটের পিএসডি তৈরি, পিএসডি থেকে এইচটিএমএল কনভার্সন, জাভাস্ক্রিপ্ট লাইব্রেরি সংক্রান্ত কাজও করতে পারবেন।

ক্যারিয়ার গড়ুন আউটসোর্সিং ও ফ্রিল্যান্সিং এ

ক্যারিয়ার গড়ুন আউটসোর্সিং ও ফ্রিল্যান্সিং এ

বাংলাদেশের জনসংখ্যার বিরাট অংশ এখন শিক্ষিত। কিন্তু শিক্ষা ব্যাবস্থা আর চাকরি ব্যাবস্থার সাথে কোন মিল না থাকায় কর্মসংস্থান হয়ে পড়েছে ঝুঁকিপুর্ন।তাই এই শিক্ষিত কর্মক্ষম জনগোষ্ঠিকে আনলাইনে ফ্রিল্যান্সিং বা আউটসোর্সিং এর যোগ্য করে গড়ে তুলতে পারলে সমস্যার অনেকটা সমাধান হতে পারে। আসুন জেনে নিই ফ্রিল্যান্সিং এবং আউটসোর্সিং কি?

আউটসোর্সিং হচ্ছে একটি প্রতিষ্ঠানের কাজ নিজেরা না করে বাইরের কোন প্রতিষ্ঠানের বা ব্যাক্তির সাহায্যে করিয়ে নেয়া। এই কাজ হতে পারে কোন প্রকল্পের অংশবিশেষ বা সমগ্র প্রকল্প।

ফ্রিল্যান্সিং হচ্ছে কোন ব্যাক্তি কোন নির্দিষ্ট প্রতিষ্ঠানে কাজ না করে চুক্তিভিত্তিক বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান বা ব্যাক্তির কাজ করে থাকেন। একজন ফ্রিল্যান্সার তার ইচ্ছামত কাজ বেছে নিতে পারেন। আবার যখন ইচ্ছা তখন কাজ করার তার স্বাধীনতা আছে। গতানুগতিক অফিস সময়ের মত ধরাবাধা কোন নিয়মের মধ্যে থাকতে হয়না।

যেভাবে ফ্রিল্যান্সিং কাজ হয়।

যখন কোন ব্যাক্তি বা প্রতিষ্ঠান তার কোন কাজ আইটসোর্সিং করতে চান তখন তিনি কাজটির জন্য ফ্রিল্যান্সারদের সাথে বিড করেন। বিডের মধ্যে ফ্রিল্যান্সার উল্লেখ করে দেন যে, কাজটি তিনি কত দিনের মধ্যে করে দিতে পারবেন এবং তার মূল্য কত। এভাবে একটি কাজের যে কয়টা বিড হয় তার মধ্য থেকে সবচেয়ে যোগ্য এবং সুবিধাজনক বিডটিকে ইমপ্লয়ার নির্বাচন করেন।এরপর সেই ফ্রিল্যান্সারদের সাথে যোগাযোগ করে বিস্তারিত আলোচনা করেন।

কিভাবে শুরু করবেন ?

এখানে কাজ পেতে হলে আপনার প্রোফাইলটিকে সুন্দর করে গুছিয়ে তৈরি করতে হবে যা দেখে ক্লাইন্ট আপনাকে কাজ দিতে আগ্রহি হবে।এবং আপনি যে প্রাইস বিট করবেন তা তার মনঃপুত্ত হতে হবে।আপনি বিভিন্ন মার্কেট প্লেস ঘুরে দেখুন কোন কাজের চাহিদা বেশি।

যেভাবে আপনার প্রোফাইল তৈরি করবেন?

নিজেকে কোন একটি কাজে দক্ষ করে তুলুন।আর আপনি যে কাজটি জানেন সেই কাজের কিছু স্যাম্পল তৈরি করুন ।আপনি দক্ষ কিনা জানতে বিভিন্ন সাইট প্লেসে পরিক্ষা দিতে পারেন ।আপনি যে কাজটি জানেন সে বিষয়ে বন্ধু মহলে বিভিন্ন সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন। ফ্রিল্যান্সিং করতে হলে আর দুটি বিষয়ে দক্ষতা থাকা জরুরী ।তা হল ইন্টারনেট সম্পর্কে ভাল জ্ঞান এবং ইংরেজিতে দক্ষতা। কারন ক্লায়েন্টদের অধিকাংশই হবে বাইরের দেশের । এবং তাদের সাথে ইংরেজিতে যোগাযোগ করতে হবে ইন্টারনেট এর মাধ্যমে ।

ফ্রিল্যান্সারদের মনে রাখতে হবে ফ্রিল্যান্সিং করতে গেলে সাফল্যের পাশাপাশি কিছু চ্যালেঞ্জের এর মুখোমুখি হতে হবে।কাজ করার নির্দিষ্ট কোন সময় থাকেনা আপনাকে রাতের বেলা কাজ করতে হতে পারে।কাজ কতদুর এগোল ক্লায়েন্ট যখন দেখতে চাইবেন তাকে দেখাতে হবে। এতে আপনার বাক্তিগত জীবনে অসুবিধা হতে পারে।নতুনদের আয়ের পরিমান কম বেশি হতে পারে প্রতি মাসে ।কোন কোন ক্লায়েন্ট পেমেন্ট করতে দেরি করতে পারেন এই পেশাটাকে আপনার আপনজনেরা মেনে না নিতে পারেন ।

Save

কেন ওয়েবসাইট তৈরী করবেন, কারণগুলো জেনে নিন।

কেন ওয়েবসাইট তৈরী করবেন, কারণগুলো জেনে নিন।

বর্তমান যুগটাই ইন্টারনেটের। কোন তথ্য জানতে হলে প্রথমেই মনে আসে ইন্টারনেটে সার্চ দেওয়ার কথা। সবচেয়ে অল্প খরচে তথ্য প্রকাশ করা এবং তথ্য জানার সহজ মাধ্যম হচ্ছে ওয়েবসাইট। অল্প খরচে যে কোন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান তাদের প্রতিষ্ঠানের বহুল প্রচারের জন্য এটি ব্যবহার করতে পারে।

ওয়েবসাইটে যখন তখন যে কোন তথ্য প্রকাশ করা যায়।

ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্য বিশ্বের যে কোন প্রান্ত থেকে যখন ইচ্ছে দেখা যায়।

ওয়েবসাইটে যেকোন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের পণ্যের ছবি, ভিডিও আপলোড করা যায়।

ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে ক্রয়-বিক্রয় করা যায়।ক্রেতা বাজারে না গিয়েও আনলাইনে তার পছন্দের পণ্যটি কিনে ফেলতে পারে। একইভাবে বিক্রেতাও লাভবান হয় যদি তার একটি ই-কমার্স সাইট থাকে।

অনলাইনে আয় করার জন্যও ওয়েবসাইট থাকা অত্যান্ত গুরুতবপূর্ণ। যারা ফ্রিল্যান্সার তাদের জন্য অবশ্যই একটি পোর্টফলিও সাইট থাকা দরকার। তাছাড়া বায়ার তাদের কাজের নমুনা খুঁজে পাবেনা।

একটি ভালমানের ওয়েবসাইট থাকলে বিজ্ঞাপন দাতারা আপনার ওয়েবসাইটে বিজ্ঞাপন দিতে আগ্রহী হবে। আর আপনি ও বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে প্রচুর টাকা আয় করতে পারবেন।

আনলাইনে আয় করার একটি গুরুতবপূর্ণ মাধ্যম হলো আনলাইন শপিং ওয়েবসাইট যাকে বলে ই-কমার্স সাইট।বর্তমানে সারাবিশ্বে ই-কমার্স সাইটের প্রচুর সুযোগ-সুবিধা রয়েছে।ই-কমার্স ওয়েবসাইটে সরাসরি পণ্য বিপনন বা কমিশনের মাধ্যমে মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করা সম্ভব।ওয়েবসাইটের মাধ্যমে যেকোন পণ্য সারাদেশের ক্রেতাদের মাঝে পৌঁছে দিতে একটি ই-কমার্স সাইটের ভূমিকা আতিব গুরুতবপূর্ণ।

এরকম আরও অনেক অনেক সুবিধা রয়েছে যা বলে শেষ করা যাবেনা।আপনি নিজেই জানতে পারবেন যদি ওয়েবসাইট তৈরী করেন বা কোনভাবে এর সাথে যুক্ত হন।আমার তো মনে হয় ইন্টারনেট ,ওয়েবসাইট ছাড়া এখন আর মানুষ কিছু ভাবতেই পারেনা। এমন কোন বিষয় নেই যার জন্য ইন্টারনেটে সার্চ পড়েনা।আরও বিস্তারিত জানতে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন

একটি ই-কমার্স ওয়েবসাইট ব্যবসার সফলতার চাবিকাঠি

একটি ই-কমার্স ওয়েবসাইট ব্যবসার সফলতার চাবিকাঠি

বিশ্বায়নের এ যুগে ইন্টারনেট ব্যবহারে পৃথিবীর সবকিছুতে যেমন অনলাইনের ছোঁয়া লেগেছে তেমনি আমাদের ব্যবসা-বাণিজ্যেও বৈপ্লাবিক পরিবর্তন এসেছে, আমাদের দেশের ব্যবসা বাণিজ্যও এখন ইন্টারনেট নির্ভর হয়ে পড়ছে। ইন্টারনেট মানুষের সামনে খুলে দিয়েছে একটি মুক্ত পৃথিবী। পৃথিবীর সবকিছু এখন মানুষের খুব কাছে এমনকি ঘরে বসেই করতে পারছে। ব্যবসা বাণিজ্য থেকে শুরু করে শিক্ষা-তথ্য বিনোদন সবকিছু এখন যে কোন মুহূর্তে যে কোন জায়গা থেকে পাওয়া যাচ্ছে।

ইন্টারনেটের মাধ্যমে আপনি বাস, ট্রেন, এমনকি বিমানের টিকেট পর্যন্ত ঘরে বসে ক্রয় করতে পারছেন। বাসায় বসে থেকে আপনি আপনার অফিসের কাজ পরিচালনা করতে পারছেন। এতে করে মানুষের জীবনের যোগাযোগ ব্যবস্থা এখন অনেক সহজ হয়ে গেছে। ওয়েব সাইট ছাড়া ইন্টারনেটের তেমন সুফল পাওয়া সম্ভব নয়। ইন্টারনেটের কারনে আজকে সারা বিশ্বকে খুব কাছে মনে হয়। পণ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের নিজেদের পণ্যের বিস্তারিত বর্ণনা নিজস্ব ওয়েব সাইটের মাধ্যমে তুলে ধরে।

এতে করে সবাই যে কোন পন্য বা প্রতিষ্ঠানের সংবাদ খুব সহজে ওয়েব সাইটের মাধ্যমে বৃহৎ জনগোষ্ঠির নিক জানতে পারেন। কোন তথ্য না জানলে গুগল কিংবা অন্য কোন সার্চ ইঞ্জিনে খুঁজে বের করা যায়।

বর্তমান যুগে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের জন্য ই-কমার্স হচ্ছে একটি অন্যতম জনপ্রিয় মাধ্যম যার মাধ্যমে আপনি আপনার নতুন/পুরাতন গ্রাহকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে পারেন। ই-কমার্স ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আপনি আপনার খরচও অনেকাংশে কমাতে পারেন। আপনি যদি একজন স্বনির্ভর ব্যবসায়ী হতে চান, তাহলে আপনি অনলাইনে বিজনেস খুলে আপনার পণ্য বিক্রি শুরু করতে পারেন। এর জন্য আপনার বাহ্যিক কোন খরচ হবে না।

ই-কমার্স ওয়েবসাইট যেভাবে কাজ করে

ই-কমার্স সাইটে বিক্রয়যোগ্য বিভিন্ন ধরনের পন্য এবং পণ্যের মূল্যসহ অন্যান্য বিবরণ দেওয়া থাকে। পণ্যের বিবরনের নিচে অর্ডার বাটন যুক্ত থাকে। অর্ডার বাটনে ক্লিক করে ক্রেতা বা ভোক্তা নির্দিষ্ট পণ্য ক্রয়ের অর্ডার দেন। অর্ডার গ্রহন করার জন্য ই-কমার্স সাইটে মূল্য পরিশোধ কার্ডের ব্যবস্থা থাকে। এখানে ক্লিক করলে ক্রেতার কাছে নির্দিষ্ট পরিমান অর্থ প্রদান করতে বলা হয়। ক্রেতা উক্ত কার্ডের প্রয়োজনীয় তথ্যাদি সরবরাহ করে সম পরিমান অর্থ প্রদান করেন।

আর্থিক লেনদেনের পুরো বিষয়টি সুরক্ষিত উপায়ে সম্পন্ন হয়ে থাকে। পণ্যের মূল্য পরিশোধের পর অর্ডার ফরমটির যাবতীয় কাজ সম্পন্ন হয়ে যায়। এ সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য একই সাথে ই-মেইল আকারে ক্রেতা এবং বিক্রেতার নিকট ই-কমার্স সাইট কর্তৃক প্রেরিত হয়। এরপর পণ্য ক্রেতার নিকট পৌঁছানোর জন্য পণ্য পরিবহন সংস্থায় পাঠানো হয়। নির্দিষ্ট সময়ে ক্রেতার বাড়িতে পণ্যটি পৌছে দেয়া হয়। ক্রেতা বেশি পরিমাণ পণ্য ক্রয় করলে কিংবা ক্রেতা প্রতিষ্ঠানের আওতাভুক্ত হলে পরিববহনের জন্য কোন ফি নেওয়া হয় না আবার কম পরিমাণে পণ্য ক্রয় করলে কিংবা ক্রেতা প্রতিষ্ঠানের আওতাভুক্ত না হলে পরিববহনের জন্য পণ্য মূল্যের সাথে অতিরিক্ত ফি আদায় করা হয়। এটা সম্পূর্ণ নির্ভর করে সেবা দানকারী প্রতিষ্ঠানের উপর।

ই-কমার্স সাইটে আপনি যে সকল সুবিধা পাবেন

  • অনির্দিষ্ট পেজ
  • অনির্দিষ্ট পণ্য যোগ
  • ইউনিক ডিজাইন
  • ফেসবুক পেজ
  • ইউজার লগ ইন/ নিবন্ধন প্রক্রিয়া
  • যে কোন সময় পণ্য যোগ/কর্তন করতে পারবেন
  • পিকচার আপলোড
  • কালার/ব্র্যান্ড অনুযায়ী পণ্য খোঁজা
  • পণ্যটি বড় কিংবা ছোট করে দেখতে পারবেন
  • অনলাইনে পণ্যের মূল্য পরিশোধের সুযোগ
  • স্যোসাল মিডিয়া শেয়ার অপশন
  • মোট বিক্রয়ের পরিমাণ নির্ণয়
  • গ্রাহকের মতামতের ব্যবস্থা
  • যে কোন জায়গায় বসে পরিচালনা করতে পারবেন
  • অনির্দিষ্ট ইউজার ব্যবহার করতে পারবেন

টেলিফোনে বা ই মেইলের মাধ্যমে পণ্য সম্পর্কে নিয়মিত নিত্য নতুন তথ্য আপডেট করার মাধ্যমে আপনি আপনার গ্রাহকদের উন্নতমানের সেবা প্রদান করতে পারেন। এর পাশাপাশি আপনার প্রতিনিয়ত আপডেটই আপনার ওয়েব সাইটের ক্লায়েন্ট বা ভিজিটরদের আপনার সাইট থেকে তাদেরকে পণ্য কিনতে পুনরায় আগ্রহী করে তুলবে।

সময়ের সাথে সাথে, আপনার ওয়েব সাইটের অ্যানালাইটিকস ও কাস্টমারদের মতামত আপনার ওয়েবসাইটটিকে আরও জনপ্রিয় করতে সাহায্য করবে এবং ইন্টারনেটে আপনার ব্যবসাকে শক্ত অবস্থানে নিয়ে যাবে।

Advantages and Disadvantages of E-Commerce

Advantages and Disadvantages of E-Commerce

Now-a-days, before taking or using things, everyone eagerly wants to know what are the advantages and disadvantages. It describes E-Commerce full impact in day to day life globally. In particulate, quick internet connection and strong tools innovation has gifted  to the Commerce area. This internet connection adds many people in this field. E-Commerce provides numerous advantages along with many disadvantages. In today’s 21st century, everything is in electrified. The electronic and via services established virtual correspondence, E-Commerce has both the sides of bright and dark. But, bright sides are more effective and valuable in our modern lives. We usually believe to take benefits and overcome the obstacles.

 

Advantages of E-Commerce

E-Commerce advantages can be seen in every sector of our modern lives. Likewise, people can broaden their national and international market with the smallest investment. Furthermore, any types of organization can do their job conveniently with the help of E-Commerce. Here are the most significant advantages of networking are below-

 

  • Best Productivity: These systems provide best products among consumers and companies as well. People find quick feedback in online because it’s convenient in all aspects.

 

  • Best Services: We  tries to give their client the best services. It does not matter he/she is an organization or a customer.

 

  • Quality Services: In this process clients can get quality product along with quality services. In fact they can choose their cherish.

 

  • Reasonable Prize: E-Commerce provides their clients best products as well as services at the reasonable prize. For this factor, people more attract on it.

 

  • Quick Transaction: When people get its features and services they can pay easily. Inversely, people can buy and sell their products easily with quick online transaction.

 

 

Disadvantages of E-Commerce

Though E-Commerce has many advantages it has some disadvantages as well. Its disadvantages cannot be denied but it can be ignored. These disadvantages are very little compare to advantages. Here are some ignoble disadvantages below demonstrate-

 

  • Protection: In many aspects we cannot protect our online account on web which helps us to buy and sell products online. Sometimes, this transaction cannot be trust worthy.

 

  • Risk: Sometimes, for payment transaction and buy products can be risky. People may face many fraud people in this online process.

 

  • Complicated System: This system is totally depending online. So, people who do not know how to use internet cannot reach E-Commerce.

 

  • Relation Problem: Loyal relation cannot build in online which we can find in manual relation. Online relations are not so strong all the time.

 

  • Network Problem: In developing country internet network is not so strong. So, people of these countries may face difficulties in using E-Commerce daily.

 

 

Impact of Advantages and Disadvantages

Everything in this world has merits and demerits. So, it’s totally up to us which things we want to receive and which things we need to avoid. Our using capabilities and utilization will prove the right as well as relevant results. This is not as tough as we think. If people are aware of using online services and its resources, we can overcome the disadvantages of E-Commerce. We should take the advantages of E-Commerce and discover the disadvantages cause and try to fix it. If we do so, we can not only enjoy more facilities in our internet but also can browse more features and services as well.

Increase Search Engine Crawl Rate

Increase Search Engine Crawl Rate

Search Engine Optimization service area simple and successful tips to increase site crawl speed
Firstly update your site content regularly and the content should be carries out the keywords what you want to show to traffic.

Increase your page rank with Google as the entire search engine high PR site crawl rate high,

Server is the most effective issue for visitor as no one want to stay in site for more times to load, as 80% of visitor are comes from search engine and search engine dose not shown only your site, so page load speed is too impotence for web site Google crawl.

Avoid duplicate content its mean don’t update any copy content what already published in some others site, duplicate content against of Google search engine quality.

Building block right of entry to not needed page via robots.txt

Using Google webmaster tools check and optimize Google crawl rate, by WMT you can see your site crawl rate now.

Once update your content most welcome to use ping services to demonstrate your site being there and give permission to bots recognize when your site content is reorganized

Once complete site submit to online directories,
Make alt tag to the entire use image in the site,
Overall use social media service once published you content and that will make you site crawl rate,

You are most welcome to our Service and Training

SEO Service by AMWebCreation in Gazipur, Dhaka, Bangladesh,

SEO Training from Gazipur, SEO Training,

Save

Importance of business website

Importance of business website

In 21st competitive year, when anyone hears something about new business organization or business related information, they first search that how many of them have their own websites. Similarly, in this modern age, everyone is conscious about the importance of a website for all business. If any business is out of its own websites, it will out of influential marketing tools and regarding benefits.

On the contrary, a website is an assortment of pages which represents an organization, business firms, and industry with the help of www (World Wide Web). All the significant and needed information is describe through text, images, videos, audio and animations. Business holders or people can discover any kinds of information or supported documents within the shortest period of time and easiest way.

How to Recognize Good Business Websites

All the websites which we can see are not the good and quality website always. Sometimes, we cannot find relevant topics in websites. We may have found various websites but all those are not work worthy at all. Viewers want to know and see something good, well organized, coherent, relevant and interesting websites. In order to find good business websites, we advise you to check those below things-

• Content: Everyone wants to see well organize writing with some interesting keywords, highlights and other related objects. You have to confirm those things first.
• Components: The web functions should be error free and correct utilization of interfaces. A good components website carries hyperlinks, contact address, anchor text, details, features and navigation buttons as well.
• Brand Name: The brand names that produce this website are really very significant.
• Graphics: It is the most important and critical part of any websites. So, viewers should give high emphasis on it.
• Search Engine Optimism: Search Engine Optimism creates valuable and effective websites including all features. Good websites must follow the SEO rules.

Reasons of becoming Business Website Important

Nowadays, with great deal of the popularity of Facebook, Twitter, Blogs and other applications, Business Websites still gets importance among people. Because of some major reasons Business Websites are able to maintain its importance as before. Here are the reasons_

• Convenience: People can easily find out their business information and data by using those websites.
• Security: These types of websites are more secure and logical than any other websites.
• Domination: Everyone wants to make their own identity and this website makes it for business holder and related people.
• Chances: It provides chances to make own business websites for beginners and professional as well.
• Measurement: All the tactics and promotions can be measured very swiftly without any doubts. It is relevant to requirement websites.

Popularity of Business Website
Evidently, people of any countries and any cultures are supporting and preferring this websites. It has been getting more and more popularity in web world. Business websites are usually hosted by professional business owner who wants to host his website through internet and other online applications. That is why; these websites are quite unique comparing to others. Even, 24/7 these websites helps you from many sectors. A viewer who wants to gain knowledge from websites, they take help from it and increase their business as well as customers. Moreover, it demonstrate full path of becoming successful business men. Above discussion are the reasons of getting popularity from people.

DESCRIPTION
Importance of Business Website is increasing day by day. Because it helps to establish creditability like business, it is an effective source of attract people.

Application Development Company

Application Development Company

In this 21st century companies include a new service which is known as an Application Development Company. We provide all services which are related to the application development area. We make every service convenient according to our customers. We want to treat our clients with our best offers and quality facilities. On the Contrary we not only improve our current system better but also develop software. No matter where our clients are live, we can give service at any part of the country. It gives emphasis on client’s views. In addition, we offer proven and unique web applications. We create new dimension on application development internationally. We provide numerous applications which are describe below here in details-

 

Web Application Development

Everyone knows that new technologies bring many things and web application is one of them. Web Application development company helps to come closer to customers at any part of the world in a convenient way. We also prove technology solution and related services. Every single company wants to have web sites. A well organize and attractive web sites help to catch customers. We provide web application development for well-known companies. For spreading up to the mark apps for any companies we include below factors-

 

  • Design web sites
  • Maintain websites
  • Develop software for apps
  • Cope with market demands
  • Build internet market
  • Ensure quality performance
  • Reduce costs
  • Guarantee for best services
  • Provide standard apps
  • Assure feedbacks

 

 

Mobile Application Development

With the increasing demands on mobile applications, we offer application for any kind of mobile application development companies. With us you can feel free for anything as well as can go through a long path with us. We ensure quality work with our experienced team. In this section we include many other features as well like facebook advertise, Google advertise, search engine, PPC, email and so on. Additional apps are-

 

  • Application for ipad
  • Android application
  • Apps for J2me
  • Apps for Symbian
  • Sim toolkit
  • Java Card
  • Money transfer
  • Tracking & Dispatching GPS

 

Rational Application Developer

It is web sphere commercial software which works for visual designing, manufacturing, examine and deploying web services, java, portals etc. We include this service at our application development sector. Our aim is to ensure the best rational application developer for the welfare of mankind. We add professional wizards, writers, strategies, plans, tools, techniques. Furthermore, we solve complex of any software and identify patterns of any apps code. We assure much less cost than others. We not only provide apps developers but also train them through experts.

 

Rapid Application Development

It is basically a linear sequential software development service. It works for planning tasks. We are worked by our high skill engineers. We provide this application with a very short time. It is an object leaning approach in business area. Most of the functions are modernized by our experts. So it’s very easy to work on in any circumstances. If you get our service will have many more excellence like-

 

  • Best Quality
  • Provide feedbacks
  • Reduce risks
  • Automated tools
  • Complete all apps development in time
  • Make wise decision
  • Cope with market demands
  • Assure success Projects
  • Cheap rate service
  • Tested program
  • Proven apps
  • Follow agile methods

 

Joint Application Development

Joint Application Development is another service of our company which is the part of Application development. It is the method which is working on building a product with the development, management; create customer group and specific documents. In joint application development many developers and organizations come together to work a specific project in a combine atmosphere. We provide this application like top of the professional companies. By providing these services, we provide some extra merits for our client’s like-

 

  • Quality services
  • Working according to your needs
  • Timely implementations
  • Provide well communications
  • Solve problems unanimously
  • Link up with clients and provides
  • Overcoming the problems
  • Gather user requirements
  • No extra charges

 

IPhone Application Development

IPhone is known as a 3rd generation mobile phone to the young generation. In Today’s world all the popular companies invite customers to get development services and develop applications. We create quality applications for IPhone to spread several services. With the growing demands of IPhone apps we decide to serve this application globally. From other companies we include many more exclusive apps and features. These applications have some significant benefits such as-

  • Convenient Resource
  • Provide skilled worker
  • No additional charges on resources
  • High Income generation
  • Wonderful out sourcing process for development applications
  • Help to suit business requirements
  • Provide more than 2dozen live apps
  • Serve perfect tools
  • Ensure perfect videos and demos
  • Offer Top-Notch service
  • Much cheaper

About AMWebCreation

About AMWebCreation

AMWebCreation is a name in the word who was trying to develop their self from 2012 in the area of website design, development, SEO, SMO, clipping paths, professional graphics studio, email marketing, logo design and domain hosting service area in Bangladesh, now we have added professional IT training center in Gazipur.

Why AM Web Creation?

We have started the project in Gazipur to make a digital Bangladesh by making you website to show you to the world and make you update about digital by build, by borne by training. As we are special in CMS Development, wordpress development, eCommerce development, blog development with any area in HTML, CSS, PHP, MYSQL, PHPmyadmin, Jquery, JAVA and we have a special talent team in our development center.

Our Service

Web Design
Web Development
Wordpress Development
Joomla Development
E-Commerce Development
SEO
Graphics Design
Logo Design
Business Card
Clipping Path
Color Correction
Drop Shadow
Image Manipulation
Image Masking
Image Retouching
Multiple Clipping Path
Natural Shadow
Neck Joint or Ghost
Raster to Vector
Reflection Shadow
SMO
Email-Marketing
Domain Hosting
Online Marketing

Training Package

Web Design (HTML) Training

Training Fee : 10,500
Training duration: 1.5 months
Number of Session: 15 (15X2 hours)

Web Development Training

Training Fee : 15,500
Training duration: 2 months
Number of Session: 20 (20X2 hours)

WordPress Development Training

Training Fee : 15,500
Training duration: 2 months
Number of Session: 20 (20X2 hours)

Joomla Development Training

Training Fee : 15,500
Training duration: 2 months
Number of Session: 20 (20X2 hours)

E-Commerce Development Training

Training Fee : 15,500
Training duration: 2 months
Number of Session: 20 (20X2 hours)

SEO Training

Training Fee : 12,500
Training duration: 2 months
Number of Session: 20 (20X2 hours)

Graphics Design Training

Training Fee : 15,500
Training duration: 2 Months
Number of Session: 20 (20X2 hours)

Logo Design Training

Training Fee : 8,500
Training duration: 1.5 Months
Number of Session: 15 (15X1 hours)

SMO Training

Training Fee : 12,500
Training duration: 2 Months
Number of Session: 20 (20X2 hours)

Email-Marketing Training

Training Fee : 12,500
Training duration: 2 Months
Number of Session: 20 (20X2 hours)

Freelancing Training

Training Fee : 8,500
Training duration: 1.5 Months
Number of Session: 15 (15X1 hours)

Spoken English Training

Training Fee : 3,500
Training duration: 2.5 Months
Number of Session: 20 (20X1 hours)

Corporate Office

AMWebcreation
House#1069, Sheikh Manshion,
Shibbari Road,(Opposite of Siam CNG Pump)
Gazipur Chowrasta,
Gazipur City Corporation,
Gazipur
Phone +88 02 9263136
Mobile +88 01846288000
Skype: am.webcreation

 

Dhaka Office

AMWebcreation
House-2709,
Road- Taltola, Nordapara,
Dhakkin Khan
Ashkona, Uttara
Dhaka-1230
Phone +88 02 49263136
Mobile +88 01846288000
Skype: am.webcreation

Free WordPress Themes, Free Android Games