একটি ই-কমার্স ওয়েবসাইট ব্যবসার সফলতার চাবিকাঠি

একটি ই-কমার্স ওয়েবসাইট ব্যবসার সফলতার চাবিকাঠি

বিশ্বায়নের এ যুগে ইন্টারনেট ব্যবহারে পৃথিবীর সবকিছুতে যেমন অনলাইনের ছোঁয়া লেগেছে তেমনি আমাদের ব্যবসা-বাণিজ্যেও বৈপ্লাবিক পরিবর্তন এসেছে, আমাদের দেশের ব্যবসা বাণিজ্যও এখন ইন্টারনেট নির্ভর হয়ে পড়ছে। ইন্টারনেট মানুষের সামনে খুলে দিয়েছে একটি মুক্ত পৃথিবী। পৃথিবীর সবকিছু এখন মানুষের খুব কাছে এমনকি ঘরে বসেই করতে পারছে। ব্যবসা বাণিজ্য থেকে শুরু করে শিক্ষা-তথ্য বিনোদন সবকিছু এখন যে কোন মুহূর্তে যে কোন জায়গা থেকে পাওয়া যাচ্ছে।

ইন্টারনেটের মাধ্যমে আপনি বাস, ট্রেন, এমনকি বিমানের টিকেট পর্যন্ত ঘরে বসে ক্রয় করতে পারছেন। বাসায় বসে থেকে আপনি আপনার অফিসের কাজ পরিচালনা করতে পারছেন। এতে করে মানুষের জীবনের যোগাযোগ ব্যবস্থা এখন অনেক সহজ হয়ে গেছে। ওয়েব সাইট ছাড়া ইন্টারনেটের তেমন সুফল পাওয়া সম্ভব নয়। ইন্টারনেটের কারনে আজকে সারা বিশ্বকে খুব কাছে মনে হয়। পণ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের নিজেদের পণ্যের বিস্তারিত বর্ণনা নিজস্ব ওয়েব সাইটের মাধ্যমে তুলে ধরে।

এতে করে সবাই যে কোন পন্য বা প্রতিষ্ঠানের সংবাদ খুব সহজে ওয়েব সাইটের মাধ্যমে বৃহৎ জনগোষ্ঠির নিক জানতে পারেন। কোন তথ্য না জানলে গুগল কিংবা অন্য কোন সার্চ ইঞ্জিনে খুঁজে বের করা যায়।

বর্তমান যুগে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের জন্য ই-কমার্স হচ্ছে একটি অন্যতম জনপ্রিয় মাধ্যম যার মাধ্যমে আপনি আপনার নতুন/পুরাতন গ্রাহকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে পারেন। ই-কমার্স ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আপনি আপনার খরচও অনেকাংশে কমাতে পারেন। আপনি যদি একজন স্বনির্ভর ব্যবসায়ী হতে চান, তাহলে আপনি অনলাইনে বিজনেস খুলে আপনার পণ্য বিক্রি শুরু করতে পারেন। এর জন্য আপনার বাহ্যিক কোন খরচ হবে না।

ই-কমার্স ওয়েবসাইট যেভাবে কাজ করে

ই-কমার্স সাইটে বিক্রয়যোগ্য বিভিন্ন ধরনের পন্য এবং পণ্যের মূল্যসহ অন্যান্য বিবরণ দেওয়া থাকে। পণ্যের বিবরনের নিচে অর্ডার বাটন যুক্ত থাকে। অর্ডার বাটনে ক্লিক করে ক্রেতা বা ভোক্তা নির্দিষ্ট পণ্য ক্রয়ের অর্ডার দেন। অর্ডার গ্রহন করার জন্য ই-কমার্স সাইটে মূল্য পরিশোধ কার্ডের ব্যবস্থা থাকে। এখানে ক্লিক করলে ক্রেতার কাছে নির্দিষ্ট পরিমান অর্থ প্রদান করতে বলা হয়। ক্রেতা উক্ত কার্ডের প্রয়োজনীয় তথ্যাদি সরবরাহ করে সম পরিমান অর্থ প্রদান করেন।

আর্থিক লেনদেনের পুরো বিষয়টি সুরক্ষিত উপায়ে সম্পন্ন হয়ে থাকে। পণ্যের মূল্য পরিশোধের পর অর্ডার ফরমটির যাবতীয় কাজ সম্পন্ন হয়ে যায়। এ সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য একই সাথে ই-মেইল আকারে ক্রেতা এবং বিক্রেতার নিকট ই-কমার্স সাইট কর্তৃক প্রেরিত হয়। এরপর পণ্য ক্রেতার নিকট পৌঁছানোর জন্য পণ্য পরিবহন সংস্থায় পাঠানো হয়। নির্দিষ্ট সময়ে ক্রেতার বাড়িতে পণ্যটি পৌছে দেয়া হয়। ক্রেতা বেশি পরিমাণ পণ্য ক্রয় করলে কিংবা ক্রেতা প্রতিষ্ঠানের আওতাভুক্ত হলে পরিববহনের জন্য কোন ফি নেওয়া হয় না আবার কম পরিমাণে পণ্য ক্রয় করলে কিংবা ক্রেতা প্রতিষ্ঠানের আওতাভুক্ত না হলে পরিববহনের জন্য পণ্য মূল্যের সাথে অতিরিক্ত ফি আদায় করা হয়। এটা সম্পূর্ণ নির্ভর করে সেবা দানকারী প্রতিষ্ঠানের উপর।

ই-কমার্স সাইটে আপনি যে সকল সুবিধা পাবেন

  • অনির্দিষ্ট পেজ
  • অনির্দিষ্ট পণ্য যোগ
  • ইউনিক ডিজাইন
  • ফেসবুক পেজ
  • ইউজার লগ ইন/ নিবন্ধন প্রক্রিয়া
  • যে কোন সময় পণ্য যোগ/কর্তন করতে পারবেন
  • পিকচার আপলোড
  • কালার/ব্র্যান্ড অনুযায়ী পণ্য খোঁজা
  • পণ্যটি বড় কিংবা ছোট করে দেখতে পারবেন
  • অনলাইনে পণ্যের মূল্য পরিশোধের সুযোগ
  • স্যোসাল মিডিয়া শেয়ার অপশন
  • মোট বিক্রয়ের পরিমাণ নির্ণয়
  • গ্রাহকের মতামতের ব্যবস্থা
  • যে কোন জায়গায় বসে পরিচালনা করতে পারবেন
  • অনির্দিষ্ট ইউজার ব্যবহার করতে পারবেন

টেলিফোনে বা ই মেইলের মাধ্যমে পণ্য সম্পর্কে নিয়মিত নিত্য নতুন তথ্য আপডেট করার মাধ্যমে আপনি আপনার গ্রাহকদের উন্নতমানের সেবা প্রদান করতে পারেন। এর পাশাপাশি আপনার প্রতিনিয়ত আপডেটই আপনার ওয়েব সাইটের ক্লায়েন্ট বা ভিজিটরদের আপনার সাইট থেকে তাদেরকে পণ্য কিনতে পুনরায় আগ্রহী করে তুলবে।

সময়ের সাথে সাথে, আপনার ওয়েব সাইটের অ্যানালাইটিকস ও কাস্টমারদের মতামত আপনার ওয়েবসাইটটিকে আরও জনপ্রিয় করতে সাহায্য করবে এবং ইন্টারনেটে আপনার ব্যবসাকে শক্ত অবস্থানে নিয়ে যাবে।

Free WordPress Themes, Free Android Games